শিরোনাম

প্রচ্ছদ নবীনগরের খবর, শিরোনাম, স্লাইডার

অবশেষে পৌর এলাকার পশ্চিমপাড়া বালুচর বাসীর মুখে হাসি ফুটল

ডেস্ক রিপোর্ট | বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০১৬ | পড়া হয়েছে 2764 বার

অবশেষে পৌর এলাকার পশ্চিমপাড়া বালুচর বাসীর মুখে হাসি ফুটল

পাবলিক সার্ভিস ইনোভেশন পেজের কল্যাণে চারদিনেই পৌর এলাকার জলাবদ্ধতা নিরসনে বেহাল রাস্তার মেরামত কাজ সম্পন্ন হলো। পৌর এলাকার পশ্চিমপাড়া ও হাসপাতাল পাড়া এলাকা সংলগ্ন (বালুচর) এলাকার একটি রাস্তা দীর্ঘদিন যাবত সংস্কার, মেরামতের অভাবে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে জন চলাচলে  অযোগ্য হয়ে পড়ে ও দূর্ভোগের সৃষ্টি হয়।

এ সংক্রান্ত একটি পোস্ট ওই পেইজে সংশ্লীষ্ঠদের দৃষ্ঠিগোচর হলে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সংস্কার ও সমন্বয়) জনাব এন এম জিয়াউল আলম ও জেলা প্রশাসক  রেজওয়ানুর রহমান  তাৎক্ষনিক উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোহাম্মদ আজিজুল ইসলাম কে এর সমস্যা সমাধানে নির্দেশ প্রদান করলে তিনি পৌর মেয়র ও স্থানীয় কাউন্সিলরকে নিয়ে উক্ত স্থান সরেজমিন পরিদর্শন করেন। সে সময় স্থানীয় পৌরবাসীর সাথে কথা বলে জলাবদ্ধতা নিরসন ও জন চলাচলের সুবিদার্থে ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।


এছাড়াও ওই এলাকার ভোগান্তির এ চিত্র মাননীয় মেয়র মহোদয় একটু নজর দিবেন কি???  শিরোনামে ‘নবীনগর টুয়েন্টি ফোর ডট কম’ এ প্রকাশিত হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ওই সময় এক সপ্তাহের মধ্যে কাজ সমপন্ন করার ঘোষনা দেন। এ ঘোষনার পরে ‘নবীনগর টুয়েন্টি ফোর ডট কম’  সাইটে পৌর শহরের পশ্চিমপাড়া বালুচর এলাকায় জলাবদ্ধতা নিরসনে ব্যবস্থা গ্রহণ  শিরোনামে একটি সবাদ প্রকাশিত হয়।

অবশেষে এক সপ্তাহের মধ্যে জরুরী ভিত্তিতে ড্রেন নির্মান/মেরামত কাজ সম্পন্ন করে বালুর চর বাসীকে স্বাভাবিক চলাচলের সড়ক উপহার দেন তিনি। ইউএনও জানান,বিকল্প চলাচলের ব্যবস্থা রেখে ইট সলিং ও সিসি ঢালাই করা হয়। দিনে রাতে কাজ করা হয়। প্রতিদিন আমি রাস্তার খোঁজ নিয়েছি, সরেজমিন ভিজিট করেছি। মান্যবর  জেলা প্রশাসক মহোদয় নিয়মিত কাজের অগ্রগতি জানতে চেয়েছেন, মুল্যবান পরামর্শ দিয়েছেন। আজ কাজ সম্পন্ন হলো। খুবই ভাল লাগছে মানুষের মুখে তৃপ্তির হাসি দেখে অবশেষে পৌরবাসীর সাথে মেয়র ও ইউএনও’র মুখে স্বার্থকতার হাসি ফুটল।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

নবীনগরে ভুয়া পুলিশ আটক

১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৬ | 26250 বার

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১