শিরোনাম

প্রচ্ছদ ধর্ম দর্শন, স্লাইডার

ইসলামের দৃষ্টিতে সৌন্দর্য্য

অনলাইন ডেস্ক | সোমবার, ৩০ মে ২০১৬ | পড়া হয়েছে 1376 বার

ইসলামের দৃষ্টিতে সৌন্দর্য্য

ইসলাম সুন্দরের ধারক ও বাহক। সুন্দর বলতে ব্যক্তি থেকে শুরু করে মানুষের চারপাশের সব কিছুর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা ও অবস্থাভেদে আভিজাত্যকেই বুঝায়। নোংরা, অপবিত্র তালিযুক্ত পোশাক পরিহিত উসকোখুসকো চুল, দাড়ি ও গোঁফের অধিকারী ব্যক্তির বুজর্গী দাবি করা প্রতারণা বৈ কিছু নয়। তাই প্রত্যেক মানুষের উচিত সাধ্যানুযায়ী উত্তম পোশাক পরিধান, সুন্দর ও সুশৃঙ্খল জীবন-যাপন করা। কেননা ইসলাম নোংরা, অপরিচ্ছন্ন ও উচ্ছৃঙ্খল জীবন-যাপনকে সমর্থন করে না। সামর্থ না থাকলেও পুরাতন কাপড়ে সুন্দর, পরিপাটি ও সুশৃঙ্খল জীবন-যাপনই ইসলামের সৌন্দর্য বহন করে। কুরআন ও হাদিসে তার সুস্পষ্ট নির্দেশনা রয়েছে। যা তুলে ধরা হলো-

আল্লাহ তাআলা কুরআনে উল্লেখ করেন, ‘হে মুহাম্মাদ! (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) তাদেরকে বলে দিন, আল্লাহ তাঁর বান্দাদের জন্য যে সব সৌন্দর্য সামগ্রী সৃষ্টি করেছেন, সেগুলো কে হারাম করেছে? আর আল্লাহর দেয়া পবিত্র জিনিসগুলো কে নিষিদ্ধ করেছে? বলুন, দুনিয়ার জীবনেও এ সমস্ত জিনিস ঈমানদারদের জন্য, আর কিয়ামাতের দিনে এগুলো তো একান্তভাবে তাদেরই জন্য হবে। (সুরা আ’রাফ : আয়াত ৩২)


ইসলামের আধ্যাত্মিকতার দোহাই দিয়ে তালিযুক্ত নোংরা পোশাক পরিধান করে অপবিত্র জীবন-যাপন করার কোনো সুযোগ নেই। শুধুমাত্র কুরআনের নির্দেশনাই নয়, বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামও অবস্থাভেদে সাধ্যানুযায়ী স্মার্ট জীবন-যাপন করতেন। যা ইসলামের সৌন্দর্যকে অলংকৃত করেছে।

হাদিসে এসেছে, একবার সাহাবিদের একটি দল রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সঙ্গে দেখা করার জন্য তাঁর ঘরের দরজায় অপেক্ষা করছিলেন। তিনি তাদের সঙ্গে দেখা করতে বের হওয়ার আগে পানি রাখা একটি পাত্রের ভিতর তাকিয়ে নিজের চুল-দাড়ি ঠিক করে নিচ্ছিলেন।

হজরত আয়িশা রাদিয়াল্লাহু আনহা বললেন, হে আল্লাহর রাসুল! আপনিও এমন করছেন? তিনি বললেন, হ্যাঁ, কোনো ব্যক্তি তার ভাইয়ের সঙ্গে সাক্ষাতের উদ্দেশে বের হওয়ার পূর্বে যেন প্রস্তুতি নিয়ে, পরিপাটি হয়ে বের হয়। জেনে রেখো, আল্লাহ নিজে সুন্দর এবং তিনি সৌন্দর্যকে ভালোবাসেন।

সুতরাং উসকোখুসকো চুল, ময়লা-ছেঁড়া তালিযুক্ত অপবিত্র কাপড় পরিহিত ব্যক্তি কখনোই পরহেজগার হতে পারে না। যা কুরআন-সুন্নাহর সম্পূর্ণ পরিপন্থী। এ ধরণের নোংরা জীবন-যাপনকারী ব্যক্তিরাই মানুষকে গোমরাহি তথা মুর্খতার দিকে নিয়ে যায়।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে কুরআন সুন্নাহর ওপর আমল করে সুন্দর, পরিচ্ছন্ন ও সুশৃঙ্খল জীবন-যাপন করার তাওফিক দান করুন। আমিন

Facebook Comments Box

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

প্রসঙ্গঃ মাহে রমজান

০৩ জুন ২০১৬ | 3999 বার

রমজানের আমল সমূহ

০৯ জুন ২০১৬ | 3687 বার

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১