শিরোনাম

প্রচ্ছদ নবীনগরের খবর, শিরোনাম, স্লাইডার

ছন্দ দিয়ে মুগ্ধ করা এক স্বপনের গল্প (ভিডিও)

সমীর চক্রবর্তী | বুধবার, ২৭ জুলাই ২০১৬ | পড়া হয়েছে 9527 বার

ছন্দ দিয়ে মুগ্ধ করা এক স্বপনের গল্প (ভিডিও)

‘বই দূরে কলম দূরে, দূরে পড়া লেখাও। মাথায় একটু হাত বুলাবে নেই কারো দেখাও। ছন্দ এসে বল্লো আমায় তখনি। আলোর মিছিলে চলো এখনই।’ কথায় কথায় ছন্দ অওড়ানো স্বপন মিয়ার স্বভাব। ছন্দ মিলিয়ে কথা বলাটা তার স্বভাবজাত।

স্বপন মিয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগে অনার্স চতুর্থ বর্ষের ছাত্র। বাড়ি এই জেলার নবীনগর উপজেলার সোহাতা গ্রামে। ছন্দ মিলিয়ে কথা বলায় তার খ্যাতি জেলা জুড়ে।


তখন স্বপন অষ্টম শ্রেণির ছাত্র। ঘরে নুন আনতে পান্তা ফুরায় অবস্থা। মা কাজ করেন মাটি কাটার, দুই ভাই রিকশা চালান। চরম অর্থকষ্টে পড়াশুনা বন্ধ হয়ে যায় স্বপনের। চারদিকে যখন প্রতিকূল অবস্থা, তখনই ছন্দ বেজে উঠে স্বপনের কণ্ঠে। ছন্দ দিয়ে মাইকিং করা শুরু করেন তিনি। ভরাট কণ্ঠ আর ছন্দের জাদুতে মুগ্ধ হয়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রচারের জন্য প্রথম চাহিদা হয়ে উঠেন স্বপন। বিভিন্ন দিবসের স্লোগান, নির্বাচনের প্রার্থীদের স্লোগান তৈরি করতেও ডাক পড়ে স্বপনের।

নবীনগরের এমন কোন গ্রাম নেই যেখানে স্বপনের ডাক পড়েনি। ছন্দ দিয়ে সকল আয়োজন মাতিয়ে তোলেন তিনি। শুধু কি তাই ! কলেজের অনুষ্ঠান থেকে শুরু করে জেলা শহরে ছন্দ নিয়ে দাপিয়ে বেড়ান এই ছন্দ রসিক। ডাক পড়ে জেলার বাইরে বিভিন্ন অনুষ্ঠানেও।

তারপর শুধুই এগিয়ে চলার গল্প। তার ভাষায়,

‘ছন্দ দিয়ে বন্ধু হলো, হলো আরো রুজি,
একসময় এই ছন্দ ছিল আমার চলার পুজি।’

এখন স্বপনের মা আর মাটি কাটার কাজ করেন না। পড়াশুনার পাশাপাশি ৫টি টিউশনি করেন স্বপন। দুই বার পড়ালেখা বন্ধ হয়ে যাওয়ার পরও আবার পড়াশুনা শুরু করেন এবং সংসারের হাল ধরেন। জমানো টাকায় তিল তিল করে গড়ে তোলেন একটি পাঠাগারও। ২০০৩ সালে গড়ে তোলা তার এই পাঠাগারে রয়েছে হাজারো বই। যা প্রতিদিন গ্রামের পাঠকদের তৃষ্ণা মেটাচ্ছে।
তার ভাষায়,

‘চোখ খোলা, মুখ খোলা, বন্ধ সব তবু,
বই ছাড়া জ্ঞানের দ্বার খুলবে না কভু।’

ছন্দের সঙ্গে বসবাসের প্রথম দিকের কথা জানতে চাইলেই স্বপন মিয়া বলেন,

‘অঙ্কুরেই জেনে গেছি স্পষ্ট.
জীবনের মানে ঘোর কষ্ট।’

রাইজিংবিডিকে তিনি বলেন, ‘অভাবের সংসারে যখন দুই ভাই আলাদা হয়ে যান তখন মাকে নিয়ে আমি অকুল সাগরে পড়েছিলাম। তখনই আমার কণ্ঠে ছন্দ আসে, যা আমার ভাগ্য বদলানোর পাশাপাশি আমাকে আশপাশে পরিচিত করে তোলে। প্রথমে আমি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রচারে মাইকিং করার পাশাপাশি ছন্দ দিয়ে ক্রিকেট এবং ফুটবল খেলার ধারা বর্ণনা, অনুষ্ঠানে উপস্থাপনা ও নিজের লেখা ছড়া পড়তাম। খ্যাতির পাশাপাশি আয়ও হতো বেশ। এই ছন্দই আমার বেকারত্ব ঘোচাতে এবং পড়ালেখায় ফিরতে সহযোগিতা করেছে। ২০০৩ সালে বের হয় আমার প্রথম ছড়ার বই ‘জাগো হে মানব’। গতবছর বই মেলায় বেরিয়েছে আমার সম্পাদিত বই ‘নবীনগরের আলোকিত মানুষের কথা।’

স্বপন বলেন, ‘একবার এক ফুটবল খেলার ধারাবর্ণনা শুনে উত্তরা ইন্টারন্যাশনাল ক্যাডেট মাদরাসা নবীনগর শাখার প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মেহেদী হাসান আমাকে ডেকে পাঠান। বলেন, কাল থেকে তুমি আমাদের মাদরাসায় শিশু শিক্ষার্থীদের বাংলা পড়াবে। আমিতো থ। কারণ, তখনো আমি এসএসসি পরীক্ষা পাশ করতে পারিনি। অর্থাভাবে পড়ালেখা বন্ধ। তিনি বললেন, তোমার কোন সার্টিফিকেট লাগবে না। মাসিক আড়াই হাজার টাকা বেতনে বছর তিনেক সেই প্রতিষ্ঠানে চাকরি করি আমি। অন্যদিকে অনার্স পড়া অবস্থায় ২০১২ সালের দিকে উপজেলার জিনোদপুর ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের একটি অনুষ্ঠানে ছন্দ দিয়ে উপস্থাপনা করি। সেখানেও বিভিন্ন শব্দ দিয়ে তৎক্ষণাৎ ছন্দ তৈরি করি। ওই অনুষ্ঠানেই আমাকে প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা করার প্রস্তাব দেওয়া হয়। কিন্তু পরে আর তা করা হয়ে ওঠেনি।’

ছন্দ আর ছড়া নিয়ে ভবিষ্যত পরিকল্পনার কথা জানতে চাইলে স্বপন বলেন, ‘সাহিত্যের শুরু ছন্দ দিয়ে। একসময় ছন্দ পুরো সাহিত্য শাসন করতো। কিন্তু বর্তমানে এই ধারাটি দারুণ অবহেলিত। ফলে আমি চাই ছন্দ এবং ছড়া নিয়ে ব্যাপক কাজ করতে। এক কথায় ছন্দের জাদুকর হতে চাই আমি।’

ব্রাহ্মণবাড়িয়া আইডিয়াল রেসিডেন্সিয়াল স্কুল এন্ড কলেজের প্রভাষক শাহাদাৎ হোসেন বলেন, ‘একবার এক অনুষ্ঠানে তাকে আটকাতে ‘কিংকর্তব্যবিমুঢ়’ শব্দ দেওয়া হয়। মুহূর্তের মধ্যেই স্বপন বলে দেন- ‘কিংকর্তব্যবিমুঢ় হচ্ছে স্তব্দ। ধন্যবাদ আপনাকে বলার জন্য এই শব্দ।’ ছেলেটা অসম্ভব মেধাবী। ছোটবেলা থেকেই সে তার মেধার স্বাক্ষর রেখে আসছে। স্বপন একদিন ছন্দ দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মুখ আলোকিত করবে।’

ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন-

https://www.youtube.com/watch?v=MzWS2KJcnv0

কৃতজ্ঞতা_
সমীর চক্রবর্তী জেলা প্রতিনিধি, রাইজিংবিডি ডট কম।
লেখাটি রাইজিংবিডি ডট কম সাইট থেকে নেয়া হয়েছে।

Comments

comments

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

নবীনগরে ভুয়া পুলিশ আটক

১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৬ | 25653 বার

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০