শিরোনাম

প্রচ্ছদ খোলা কলাম, শিরোনাম, স্লাইডার

‘থার্টি ফার্স্ট নাইট’ উদযাপন বিদেশী নোংরা সংস্কৃতির চর্চা

মো. ইব্রাহীম খলিল | বৃহস্পতিবার, ২৯ ডিসেম্বর ২০১৬ | পড়া হয়েছে 4931 বার

‘থার্টি ফার্স্ট নাইট’ উদযাপন বিদেশী নোংরা সংস্কৃতির চর্চা

ইংরেজী বর্ষ গণনায় ৩১ ডিসেম্বর বছরের শেষ দিন আর ১ জানুয়ারী বছরের প্রথম। ৩১ ডিসেম্বরের পরে নতুন কেতন উড়িয়ে শুভ সূচনা হয় ইংরেজী নববর্ষের। পুরাতন জরাজীর্ণতা ও গ্লানি ভুলে নতুন সুখ, স্বপ্ন ও সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে যাওয়ার দীপ্ত প্রত্যয় ব্যক্ত হয় নতুনের বার্তায়। ডিসেম্বরের শেষ দিনটি ইংরেজরা পালন করেন থার্টি ফার্স্ট নাইট হিসেবে। ডিসেম্বর মাসের একত্রিশ তারিখের দিবাগত রাতকে থার্টি ফার্স্ট নাইট বলা হয়। আমরা জাতিগতভাবে বাঙালী হলেও সারা বিশ্বের সাথে তাল মেলাতে গিয়ে আমাদেরকে ইংরেজী নববর্ষ অনুসরণ করতে হয়। কিন্তু ইদানিং ইংরেজী নববর্ষ পালনের নামে যা হচ্ছে তা সত্যিই লজ্জাজনক। নিজেদের শেকরের কথা ভুলে গিয়ে ইংরেজী নববর্ষ পালন করতে প্রতিবছর থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপনের নামে চলে বিদেশী নোংরা সংস্কৃতির চর্চা।
থার্টি ফার্স্ট নাইট এর ইতিহাস অনেক পুরাতন। ঈসা (আঃ) এর জন্মের প্রায় ৪৬ বছর আগে ব্যবিলনের সম্রাট জুলিয়াস সিজার ইংরেজী নববর্ষ পালনের সূচনা করেন। তৎকালীন সময়ের অধিকাংশ মানুষ সভ্যতার গন্ডির বাহিরে বাস করার কারণে তাদের দৈনন্দিন জীবন পালনে উচ্ছৃঙ্খলতাই বেশী পরিলক্ষিত হত। সাধারণত ঈসায়ী সালের শেষ মাস ডিসেম্বরের অর্ধরাত অতিবাহিত হওয়ার পর রাত ১২টা ০১মিনিট থেকেই থাটির্ ফাস্ট নাইট এর অনুষ্ঠান শুরু হয়। আর বিদেশী সংস্কৃতির ধারক এ দেশের কিছু বিপথগামী তরুণ-তরুণীরা এটা ঘটা করে উদযাপন করছে নোংরাভাবে। বাংলাদেশের মতো একটি সভ্য দেশে এ রাতে অসভ্যতার সীমা থাকে না। কোন ব্যাঙ যখন লাফ দেয় সেটা স্বাভাবিক মনে করে আমরা উপভোগ করতে থাকি কিন্তু যখন কোন মানুষ ব্যাঙের মতো লাফালাফি করে তখন সেটাকে পাগলের কর্মকান্ড ছাড়া আর কিইবা বলা যায়?
থাটি ফার্স্ট নাইট উদযাপন নামে গোটা দেশ অশ্লীলতার চাদঁরে ঢেকে যায়। শহরের অভিজাত রেস্টুরেন্ট, আবাসিক হোটেল এবং কিছু বাসায় রাতভর বসে অসামাজিক কর্মকান্ডের পসরা। কি না থাকে তাতে? তরুণ-তরুণীদের ধ্বংস করার জন্য যা চাই তার সবটার রসদ এ সকল অনুষ্ঠানে মওজুদ থাকে। আমাদের দেশে থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপন করার নামে আয়োজন করা হয় গান-বাজনা, নাচ-গান, ডিস্কো বা ডিজে (উলঙ্গ নৃত্য), পটকাবাজি, আতশবাজি, বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালানো, আনন্দ শোভাযাত্রা, তরুণ-তরুণীদের রাতভর উল্লাস, মদ-বিয়ারসহ নানা মাদকদ্রব্য সেবনে প্রলুব্ধ করতে কনসার্ট, লাইভড্যান্স, বিদেশী সংগীতানুষ্ঠান এবং এমন সব যা তরুণ-তরুণীদেরকে বিভিন্ন অপকর্ম করতে প্রলুব্ধ করে।
থার্টি ফার্স্ট নাইট অনুষ্ঠান উৎসব উদযাপন করতে গিয়ে সাময়িক মোহে, মূহর্তের ভালো লাগায় অবাধে মেলামেশার কারণে বিভিন্ন ধরনের মারাত্মক সামাজিক সমস্যার সৃষ্টি হয়। যে সকল তরুণীরা এ রাতের অনুষ্ঠান উপভোগ করতে বের হয়, হয়তো তাদের অনেকেরই নানারকম শারীরিক সমস্যা নিয়ে বাসায় ফিরতে হয়। প্রায় প্রতিবছর থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপনকে কেন্দ্র করে ধর্ষনের মতো মারাত্মক ঘটনাও ঘটে। তার মধ্যে দু’একটি ঘটনা প্রকাশ পেলেও অধিকাংশ বুকের মধ্যে পাথরচাপা হয়ে সঞ্চিত থাকে। বখাটে তরুণরা তাদের মনস্কাম পূরণের মানসে এ রাতটিকে টার্গেট করে। আর বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ হয় এ অপকীর্তির কথা।
যে সকল তরুণ-তরুণীরা আগামী দিনের কর্ণধার হবে, তারা যদি এমন বিপথগামী হয়ে পড়ে তবে দেশের ভবিষ্যত চির অন্ধকারে নিমজ্জিত হবে। আর যেন কোনো মা-বাবার মুখে চুনকালি দেয় এমন সন্তানের জন্ম না হয়, তাই অভিভাবকদের সচেতন থাকতে হবে। সন্তান বিপথে গেলে অভিভাবকদের ক্ষতিটাই সবচেয়ে বেশী।
আমরা সভ্যতার উষালগ্নে দাঁড়িয়ে আছি। উন্নত জীবন আমাদেরকে হাতছানি দিয়ে ডাকছে। আমাদের নিজেদের ঐতিহ্য, সভ্যতা এবং সংস্কৃতি বিশ্বের শ্রেষ্ঠ সংস্কৃতি। মনে রাখতে হবে, থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপন মানে উশৃঙ্খলা নয় বরং সত্য ও সুন্দরের পথে আগামীকে বরণ করে নেওয়া। সুতরাং বিদেশী এ সব নোংরা সংস্কৃতির পিছনে না ছুটে আমাদের নিজস্ব সংস্কৃতিকে শক্তভাবে ধারণ এবং পালন করতে হবে। আমাদের সকলকেই শপথ নিতে হবে, যেন থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপনের মতো এ ধরনের বিদেশী অপসংস্কৃতির গড্ডলিকায় গা ভাসিয়ে না দিয়ে নিজেদের সংস্কৃতির প্রতি মনোযোগী হই। এ ধরনের অপকর্ম থেকে আমাদের তরুণদের ঠেকাতে সরকারের প্রচেষ্টাই যথেষ্ট নয়, আমাদের সকলকেই সোচ্চার হতে হবে। তরুণদের এ নোংরা মানসিকতার পরিবর্তনে উৎসাহিত করতে হবে। তাদের মনে শুভ বুদ্ধির উদয় ঘটাতে হবে। থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপনরে জন্য নয়, আসুন মধ্যরাতে বের হই একটি শীত বস্ত্র নিয়ে অসহায় শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য।

লেখকঃ সহকারী অধ্যাপক মোঃ ইব্রাহীম খলিল, সাংবাদিক ও কলামিস্ট ।

ইব্রাহিমপুর সিনিয়র মাদ্রাসা, নবীনগর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া।
০১৭১১-২৬৩৭২৩।


Facebook Comments Box

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

ওস্তাদের মাইর শেষ রাইতে

১১ সেপ্টেম্বর ২০১৬ | 4892 বার

নবীনগরের এপ্রিল ট্রাজেডি ১৯৭১

২৯ এপ্রিল ২০১৭ | 3066 বার

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০