শিরোনাম

প্রচ্ছদ নবীনগরের খবর, শিরোনাম, স্লাইডার

অবশেষে নদী ভাঙ্গনে সর্বস্ব হারিয়ে নিঃস্ব হওয়া ৩৪টি পরিবারের মাথা গুজার ঠাই মিলেছে

এস এ রুবেল | মঙ্গলবার, ২২ ডিসেম্বর ২০২০ | পড়া হয়েছে 253 বার

অবশেষে নদী ভাঙ্গনে সর্বস্ব হারিয়ে নিঃস্ব হওয়া ৩৪টি পরিবারের মাথা গুজার ঠাই মিলেছে

‘নদীর একুল ভাংগে অকুল গড়ে, এইতো নদীর খেলা, সকাল বেলার ধনীরে তুই ফকির সন্ধে বেলা।’ গানের এ লাইন দুটো অনেকেরই জানা থাকলেও জানা নেই এই গানের ভাবার্থ কি! একমাত্র তারা উপলব্ধি করতে পারবে যদি সে নদী ভাঙ্গনে নিঃস্বদের কেউ হয়৷

ভাবা যায়! আচমকা নদী গর্ভে বসতভিটা বিলীন হলে একটা পরিবারের কিইবা থাকে? ঠিক তেমনি মেঘনার ভয়াল থাবায় কতশত মানুষের স্বপ্ন ভাংছে তার হিসেব কি রাখে কেউ! নদীগর্ভে ঘরবাড়ি বিলীন…চোখের পলকে পড়নের কাপড় ছাড়া অবলম্বন কিছুই থাকেনা নিঃস্ব হওয়া মানুষগুলোর। খোলা আকাশের নিচে মানবেতর ঠাই হলেও এই শীতে শিশু নারী বৃদ্ধদের কি হাল হবে,কোথায় পাবে গরম কাপড় কিংবা প্রকৃতির ডাকে পরিস্থিতি সামাল দেয়াও চাট্টিখানি কথা না।


সেসব মানুষগুলোর করুণ পরিস্থিতির অবর্ণনীয় দুর্ভোগের কথা লিখে শেষ করা যাবেনা। তবে আশার কথা হলো, মেঘনার ভাঙ্গনে সর্বস্ব হারিয়ে নিঃস্ব হওয়া ৩৪টি পরিবারের মাথা গুজার ঠাই মিলেছে। নবীনগরের শ্যামগ্রাম ইউনিয়নের নাছিরাবাদ আশ্রয়ণ প্রকল্পে তাদের বাসস্থান সহ নিত্য চাহিদার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

নবীনগর উপজেলার নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) একরামুল ছিদ্দিক জানান, সরকারী খাস জমিতে ভূমিহীন এই ৩৪ (চৌত্রিশ) পরিবারের প্রত্যেকের জন্য আজ থেকেই ২ বেডরুম, রান্নাঘর, আলাদা টয়লেটসহ পাঁকা ঘর নির্মাণ করা ও গভীর নলকূপের ব্যাবস্থা করা হচ্ছে।

অসহায় মানুষগুলো শীতে শীতবস্ত্র কেনাতো দূরের কথা তীব্র শীত নিবারণে তাদের জন্য নেই কোনো ব্যবস্থা। বিষয়টি অনুধাবন করে  ইউএনও রাতেই ছুটে যান সেসব মানুষের মাঝে গরমের উষ্ণ পরশ দিতে।

ইউএনও একরামুল ছিদ্দিক এর আগেও বিভিন্ন কর্মকান্ডে মানবিক গুণাবলির প্রকাশ ঘটান যা নবীনগরবাসীর কাছে পরিচিত। তিনি অসহায় মানুষের জন্য সরকারি কিংবা ব্যক্তিগত উদ্যোগে কিছু করার যে মানষিকতার পরিচয় দিয়েছেন অল্প কদিনে এর প্রকাশ ঘটেছে।

ইউএনও জানান,এই উপজলায় এ রকম অনেক গরীব-অসহায় মানুষ রয়েছেন যারা শীতবস্ত্রের অভাবে তীব্র শীতের সময় খুব কষ্টে দিন কাটান। সরেজমিন গেলে তা ভালোভাবে প্রত্যক্ষ করা যায়। এর জন্য প্রত্যন্ত অঞ্চলে গিয়ে আরও কিছু কম্বল বিতরণ করা হবে। তিনি স্থানীয় প্রতিষ্ঠিত ব্যক্তিদের এসব হতদরিদ্রদের সহযোগিতায় সরকারের পাশাপাশি এগিয়ে আসার আহবান জানান।

তিনি নদী ভাঙ্গনে অসহায়দের বাসস্থানের ব্যবস্থা করতে সর্বাধিক সহযোগিতা করায় ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান,  নবীনগরের মাননীয় সংসদ সদস্য এবাদুল করিম বুলবুল, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন)জনাব খলিলুর রহমান স্যার, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সুযোগ্য জেলা প্রশাসক জনাব হায়াত – উদ- দৌলা খান স্যার, সম্মানিত উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ মনিরুজ্জামান মনির মহোদয় এর প্রতি।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

নবীনগরে ভুয়া পুলিশ আটক

১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৬ | 25894 বার

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০