শিরোনাম

প্রচ্ছদ সাহিত্য পাতা

নির্বাচন অসামান্য

মুহাম্মদ মনিরুল হক | শুক্রবার, ২৯ এপ্রিল ২০১৬ | পড়া হয়েছে 1389 বার

নির্বাচন অসামান্য

দীর্ঘক্ষণ যাবত ঘুম ও জাগরণের মাঝামাঝি পড়ে আছে রহিছ উদ্দিন। ঘামে ভেজা শরিরে একটা মাছি বসে কিছুক্ষণ হাটছে আবার উড়ে যাচ্ছে। রহিছ উদ্দিনের যখনই ঘুম ঘুম একটা ভাব চলে আসে তখনই মাছিটা শরিরে এসে বসছে। মাছিটার জন্য ঘুমাতে পারছেনা রহিছ উদ্দিন। তার বিরক্ত লাগার কথা কিন্তু সে বিরক্তবোধ করছে না। বরং মাছিটা যখন শরিরে এসে বসছে কিছুটা আরাম অনুভব করছে রহিছ উদ্দিন। মনে হচ্ছে যেন আলতো করে কেউ শুরশুরি দিচ্ছে। মাছিটার শুরশুরিতে যখন আরামে চোখ বুঝে আসে তখনই মাছিটা উড়ে যাচ্ছে। রহিছ উদ্দিন ক্ষীণসুরে বলল, মাছি বন্ধু তুমি উড়ে যেও না। আমার শরিরে বসে পঞ্চাশ রাউন্ড শুরশুরি দাও, তোমার যখন ঘুম পাবে
তোমাকে আমি একশো রাউন্ড শুরশুরি দেব। মাছিটা কি বুঝতে কি বুঝেছে কে জানে। এই কথা বলার সাথে সাথে উড়ে গিয়ে রহিছ উদ্দিনের বাম কানের ভিতরে ঢুকে দ্রুতগতিতে ঘুরতে লাগলো। রহিছ উদ্দিন সজোরে বাম কাণে থাপ্পড় দিয়ে মাছিটাকে ধরার চেষ্টা করল। বজ্জাত মাছিটা মাথার কাছের খোলা জানালা দিয়ে বাইরে চলে গেল। বাইরে বৈশাখের ঝিম ধরা রোদকে উপেক্ষা করে রহিছ উদ্দিনও মাছিটার সাথে সাথে জানালা দিয়ে ঝাপ দিল। শালার মাছি! বন্ধু বলে ডাকলাম শুনলি না। এবার তোকে ধরে নিই। অদৃশ্য মাছির পিছনে ছুটে চলছে রহিছ উদ্দিন। রহিছ উদ্দিন মাছিটাকে ধরার আগেই সে পুলিশের হাতে ধরা খেল। পুলিশ তার গতিরোধ করে জিজ্ঞেস করল, দৌড়াচ্ছেন কেন? রহিছ উদ্দিন ব্যস্ত ভঙ্গিতে বলল, মাছি ধরতে। পুলিশ সদস্যরা একে অন্যের মুখের দিকে তাকাচ্ছেন। পুলিশের সাথে ফাজলামি! একজন পুলিশ সদস্য বললেন, আপনি চলেন আমাদের সাথে। রহিছ উদ্দিন অবাক ভঙ্গিতে বলল, কই যাব। রহিছ উদ্দিনের কথা শেষ হওয়ার আগেই অন্য একজন খপ করে রহিছ উদ্দিনের হাত ধরে বলল, চল…বাচ্চা।
রহিছ উদ্দিনকে চেয়ারম্যান প্রার্থীর সামনে নিয়ে আসা হল। পুলিশ সদস্যদের একজন প্রার্থীকে প্রশ্ন করলেন, স্যার আপনি ওকে চিনেন? প্রার্থী চোখ পিটপিট করে খানিকক্ষণের জন্য রহিছ উদ্দিনের দিকে তাকালেন। প্রার্থীর চোখের ভাষা এবং হাতের ইশারায় পুলিশ সদস্যরা বুঝে ফেললেন, সম্ভাব্য চেয়ারম্যান সাহেব রহিছ উদ্দিনকে চিনেন না। এর পরে আর কিছু বলার প্রয়োজন নেই। আজকের দিনে প্রার্থী যাকে চিনবেন না তাকেই গ্রেফতার করা হবে। এটাই আজকের বিশেষ আইন। তবুও পুলিশের একজন সদস্য কিছুটা কৈফিয়ত কিছুটা অভিযোগের সুরে বললেন, স্যার তার চলাফেরা এবং কথাবার্তা সন্দেহজনক। সে বলে নির্বাচনের দিন নাকি ঘুমের জন্য অত্যন্ত ভাল। আবার বলে সে নাকি মাছির পিছনে ছুটছে। আমাদের ধারণা সে সত্য গোপন করছে এবং ধরা পড়ার ভয়ে আবোলতাবোল বকছে। আমরা মনে করছি তার কাছ থেকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া যাবে।
রহিছ উদ্দিনকে পুলিশের গাড়িতে তোলা হল। রহিছ উদ্দিনের দৃষ্টি ভোট দিতে আসা সারিবদ্ধ জনসমুদ্রের দিকে কিন্তু তার মন পড়ে আছে বজ্জাত মাছিটার পিছনে।
চলতেও পারে…

Facebook Comments Box


এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাগল বাবার ভালোবাসা …..

১২ জুন ২০১৬ | 5124 বার

রতন সাহেবের কোরবানি ও আমাদের শিক্ষা

১২ সেপ্টেম্বর ২০১৬ | 3885 বার

সাহায্য (ছোট গল্প)

০৫ আগস্ট ২০১৭ | 2573 বার

আমার গ্রামের ইতিকথা

০৯ জুলাই ২০১৬ | 2435 বার

বৃষ্টিপ্রেম (কবিতা)

১২ জুন ২০১৭ | 2416 বার

★ গরম ★

৩১ মে ২০১৮ | 2287 বার

গোধূলির এই পথে

২০ আগস্ট ২০১৬ | 2147 বার

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১