শিরোনাম

প্রচ্ছদ নবীনগরের খবর, শিরোনাম, স্লাইডার

পিতা-পুত্র সুস্থ হওয়ার পর আক্রান্ত ওই ১০ জনের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে

ডেস্ক রিপোর্ট | শুক্রবার, ১৫ মে ২০২০ | পড়া হয়েছে 268 বার

পিতা-পুত্র সুস্থ হওয়ার পর আক্রান্ত ওই ১০ জনের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে

নবীনগর উপজেলার ইব্রাহিমপুর ইউনিয়নের জাফরপুর গ্রামে প্রথম আক্রান্ত হন মুক্তিযোদ্ধা মোসলেম উদ্দিন ও তার ছেলে নূর মোহাম্মদ। আক্রান্ত হবার পরপরই তাদেরকে আইসোলেশনে থাকা নিশ্চত করা হয়। এর কয়েকদিন পরেই একই পরিবারের ১০ জনের আক্রান্ত হওয়ার খবর গণমাধ্যমে প্রকাশ পেলে গোটা উপজেলায় আতংক বিরাজ করে। পরিস্থিতি সামাল দিতে উপজেলা প্রশাসন কাচামাল ও রোগী ব্যতিত সকল প্রকার যান পৌর শহরে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারী করেন।

গত কয়েকদিন আগে পিতা পুত্র সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরার খবর ও নতুন কোন আক্রান্ত না হওয়ায় এলাকায় স্বস্তি ফিরে। গতকাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সুত্র জানিয়েছে ওই দশজনের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলায় তেমন কোন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেনি এদের বেলায়।


গতকাল কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক সহসম্পাদক আলামীনুল হক গতকাল বিকেলে বিভিন্ন খাদ্যসামগ্রী নিয়ে করোনাজয়ী ওই মুক্তিযোদ্ধার খোঁজখবর নিতে বাড়িতে যান। মুক্তিযোদ্ধা মোসলেম উদ্দিন (৭৪) এর সাথে কথা বলাকালে দুঃসহ পরিস্থিতিতে তিনি যে সকলের ভালোবাসাও সহযোগীতা পেয়েছেন তা তিনি ভুলবেন না। তিনি বলেন,’করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর চেয়ারম্যান, ডাক্তার প্রশাসনসহ ম্যালা মানুষ আমার খোঁজখবর নিয়া যেভাবে সাহায্য-সহযোগিতা করছে, আমার ৭৪ বছর বয়সে এর আগে আমার ও আমার পরিবারের খবর এমুন কইরা কেউ লয় নাই। আমি সবার কাছে কৃতজ্ঞ’।

জানা গেছে, জাফরপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা মোসলেম উদ্দিন ও তার ছেলে নূর মোহাম্মদ প্রথমে করোনায় আক্রান্ত হন। এরপর তার পরিবারের আরো ১০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়ে মোট ১২ জন দীর্ঘ ১৪ দিন সম্পূর্ণ হোম কোয়ারেন্টিনে থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে এখন সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

তবে প্রথমদিকে একই পরিবারের ১২ জন করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবরটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে গোটা পরিবারটি ভয়ে আতঙ্কে ভেঙে পড়েছিল। কিন্তু গোটা পরিবারটির দুঃসময়ে উপজেলা চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান, ইউএনও মোহাম্মদ মাসুম, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ডা. হাবিবুর রহমানসহ নানা পেশার বিভিন্নজন খাদ্য ও চিকিৎসাসামগ্রী নিয়ে ওই বাড়িতে গিয়ে পরিবারটির খোঁজখবর নেন। অবশেষে দীর্ঘ ১৪ দিন সংশ্লিষ্টদের কঠোর নজরদারিতে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার পর করোনা আক্রান্ত ওই ১২ জনই এখন সুস্থ বলে জানিয়েছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

সরকারি হাসপাতালের প্রধান (ভারপ্রাপ্ত) ডা. হাবিবুর রহমান হাবিব আজ সকালে মুঠোফোনে বলেন, একই পরিবারের ১২ জন করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর আমরা নিজেরাও প্রথমদিকে ভয় পেয়েছিলাম। কিন্তু কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলায় এখন ১২ জনের করোনা পরীক্ষার প্রথম ফলাফল গতকাল নেগেটিভ এসেছে।

Comments

comments

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

নবীনগরে ভুয়া পুলিশ আটক

১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৬ | 25211 বার

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১