শিরোনাম

প্রচ্ছদ প্রবাসের পাতা, শিরোনাম, স্লাইডার

প্রবাসীরা কি খুব সুখে আছে ?

আবু বক্কর সিদ্দিক | মঙ্গলবার, ০৭ জুন ২০১৬ | পড়া হয়েছে 4423 বার

প্রবাসীরা কি খুব সুখে আছে ?

প্রবাসীরা কেন এত দেরীতে বিয়ে করে? প্রশ্নটা খুব সহজ, কিন্তু উত্তর দিতে দাঁত ভেঙ্গে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে। আমি নিজে ও এমন বিভ্রান্তিকর প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছি, উত্তর খুজতে বেশী বয়সে বিয়ে করা কাউকে প্রশ্ন ও করেছি। উত্তরটা বিভ্রান্তিকর-

বিশেষ করে আমাদের সিলেটের একটা ঐতিহ্য আছে, পরিবারের একজন সদস্য যদি বিদেশ চলে যায় তাহলে দেশে থাকা বাকি সদস্যরা এমন ভাব নিয়ে চলাফেরা করে যেন মনে হয় বারাক ওবামার ছেলে সন্তান উনারা।


যে পরিবার ছিলো কৃষির উপর নির্ভরশীল, সেই পরিবার হয়ে যায় বিদেশে থাকা ব্যাক্তির উপর নির্ভরশীল। যে পরিবার ছিলো দেশে চাকুরিজিবী কারো উপর নির্ভরশীল, সেই পরিবার হয়ে যায় বিদেশে থাকা ব্যাক্তির উপর নির্ভরশীল।

যে পরিবারে এক বেলা লাল চা খেতে প্রয়োজনবোধ মনে করতো না, সেই পরিবারে তিন বেলা দুধ চা না খেলে সমাজে নাকি ইজ্জত থাকবে না।

যে ভাইটা এক কিলোমিটার হেটে হেটে স্কুলে যেতো, তার নাকি বাই সাইকেল না হলে চলে না।

যে বোনটার তিব্বত পাউডার হলেই চলতো, তার নাকি এখন বিদেশী প্রসাধনী না হলে বান্ধবীদের সাথে তাল মিলাতে পারে না।

এক সময় বাবার নাসির বিড়ি হলে চলতো, কিন্তু এখন স্টার ফিল্টার না হলে ত্যাজ্যপুত্র করে দিবে বলে হুমকি দেয়। পরিবারের একজন সদস্য বিদেশে থাকাতে সবার এত এত বিলাসিতার চাহিদা বেড়ে যায়। আর পরিবারের এত বিলাসিতার চাহিদা মেটাতে প্রবাসে থাকা ব্যাক্তিটি নিজের কথা ভুলে যায়। শুধু একটাই ভাবনা মনে থাকে মাস শেষে ৪০/৫০ হাজার টাকা বাড়িতে দিতে হবে। তার যে টাকার আশায় পথ চেয়ে থাকে। অন্যের অভাব ঘোচাতে গিয়ে এক সময় নিজেই অভাব বোধ করে । বিলাসিতার চাহিদা আর অভাব মেটাতে প্রবাসী শুধু প্রস্তুতি নিতে থাকে এই বছর না আগামী বছর গিয়ে বিয়ে করবো,কিন্তু প্রবাসীর আগামী বছর যেন আর শেষ হয় না। অবশেষে যখন বিয়ের পিড়ীতে বসে তখন তার বয়স ৪০ কিংবা ৪৫। মানুষের গড় আয়ু ৬০/৬৫, এই বয়সে জীবনটাকে কি উপভোগ করবে? ৪৫ বছর বয়সে বিয়ে করে আবার চলে আসে নিজ গন্তব্য স্থলে, কিন্তু মন শরীর যে আর মানেনা, মায়ার টানে দেশে থাকা ভাইগুলোকে যদি ইনকামের একটা পথ খুলে দিতে পারে তাহলে হয়তো নিজে বাকি জীবনটুকু একটু আরাম আয়েশে কাটাতে পারবে। এ ভাবনায় ধার দেনা করে যদিও দেশে থাকা ভাইকে কোন কোন ব্যাবসা প্রতিষ্টান খোলে দেয়, একটা  সময় ওই প্রতিষ্টানে যাওয়া তার জন্য নিষেধ হয়ে দাড়ায়।

যখন ভেবেছিলাম প্রবাসের সমাপ্তি ঘটাব, সেখানেই আবার বাধ্য হয়ে দুর প্রবাসে পরে থাকতে হয়। এতদিনের অর্জিত যা ছিলো সব তো পরিবারের সবার সুখের জন্য বিলিয়ে দিলাম, শেষে মনে হয়, নিজের বউ সন্তানাদীর জন্য কিছু তো করতে হবে। শুরু হয় মানসিক যন্ত্রনা।

এতকিছু করেও পরে ব্যার্থদের দলের অন্তর্ভুক্ত মনে হয় নিজেকে। তখন আর কিছুই করার থাকেনা। কারন পরিস্থিতি প্রতিকুল পরিবেশে অনুকুলের বাইরে । একজন প্রবাসী মানুষ মৃত্যুর পুর্ব মুহুর্ত পর্যন্ত প্রবাসী থেকে যায়। আর যাদের জন্য নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছিলো তারাই প্রকৃত সুখী মানুষ হয়ে সমাজে বিচরন করে। হায়রে প্রবাস!!!! নিঃস্বঙ্গতার সুন্দর এক নাম প্রবাস। কষ্টের দৃশ্য দু নয়নে দেখার এক নাম প্রবাস। অনাকাংখিত কিছু অনুভব করার এক নাম প্রবাস। লালিত স্বপ্নকে কবরে দাপন করার এক নাম প্রবাস। অনিদ্রায় জেগে জেগে মৃত্যুপুরীতে গমন করার এক নাম প্রবাস। অবাঞ্চিত অবহেলিতদের তালিকায় নাম লেখানোর এক নাম প্রবাস। জীবন যুদ্ধে পরাজিত হয়ে কফিনের ভিতর লাশ হয়ে মাতৃভুমিতে ফিরে যাওয়ার এক নাম প্রবাস। সব কিছুই আছে কিন্তু কি যেন নেই, তার এক নাম প্রবাস। প্রবাসীরা খুব সুখেই আছে, তাইতো প্রবাসীরা দেরীতে বিয়ে করে। কেউ একজন বলেছিলো, যদি আমি পুনঃজনম ফিরে পাই তাহলে দেশে ডাল ভাত খেয়ে থাকবো কিন্তু প্রবাসীর তালিকায় নাম লিখাবো না। বিতাড়িত মন ডুকরে কেঁদে বলে- ভালো থাকুক দেশের সবাই, আমরা কষ্টে আছি আমাদেরকে কষ্টে থাকতে দেন, কারন কষ্ট গুলা এখন আর কষ্ট মনে হয়না।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

মধ্যপ্রাচ্যে মাহে রমজান

১২ জুন ২০১৬ | 3052 বার

দেখে এলাম আরব সাগর

১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬ | 2694 বার

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০