শিরোনাম

প্রচ্ছদ নবীনগরের খবর, শিরোনাম, স্লাইডার

বাশারুক গ্রামের লব শাহ ফকির প্রসঙ্গ

এনামুল হক এনাম | মঙ্গলবার, ২৪ জানুয়ারি ২০১৭ | পড়া হয়েছে 2914 বার

বাশারুক গ্রামের লব শাহ ফকির প্রসঙ্গ

উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে প্রতি বছরের  মাঘ মাসের ১২ ও ১৩ তারিখ (২৫,২৬ জানুয়ারি)  নবীনগর উপজেলার বাশারুক গ্রামে লবশাহ ফকিরের ওরস অনুষ্ঠিত হয় । আজ থেকে  প্রায় ১৪৩ বছর আগে শুরু হওয়া এ ওরস ধারাবাহিক ভাবে  চলে আসছে  এখনো। তবে পুর্বের চেয়ে লবশাহ ফকিরের ওরস উপলক্ষ্যে মাজার প্রাঙ্গণ থাকে জমজমাট। দুই দিন ব্যাপি  এ ওরশে মানুষজনের উপস্থিতিতে এলাকা জনস্রোতে পরিণত হয়।
তবে স্থানীয় কোন সুত্রে কিংবা কোন লিখিত না পাওয়ায় লবশাহ এর সঠিক জন্ম ও মৃত্যু তারিখ  জানা যায়নি, তবে  অনেকেই ধারনা করছেন, মাঘ মাসের  ১২ তারিখ ওনার ওফাত দিবস।  আর সে কারনে  তারিখের সাথে মিল রেখে ওরসের আয়োজন হয়ে থাকে ।

ওরশকে কেন্দ্র করে  গ্রামের অনেকের বাড়িতে আত্মীয় স্বজনের সমাগম ঘটে। ওরশে ঢাকা থেকে জনপ্রিয় বাউল শিল্পীদের এনে গান পরিবেশন করা হয়। যে কারনে দুর দুরান্ত থেকে মানুষজন আসে গান শুনতে । অনেকেই আসে  মনোবাসনা পুর্ন হবার মানত করতে এখানে।


লবশাহ ফকিরকে নিয়ে অনেক রহস্য ও আধ্যাত্মিক ভাবনা নিয়ে এলাকায় আলোচনা সমালোচনা বিদ্যমান। এর কিছু ঘটনা উক্ত প্রতিবেদক গ্রামের মুরব্বিদের সাথে কথা প্রসঙ্গে জানতে পারে,  এলাকার অনেকের মতে তিনি ছিলেন  অবিবাহিত এবং বুজুর্গ ব্যক্তি। জীবদ্দশায় ওনার কিছু আলৌকিক ঘটনা প্রকাশ পায় । কথিত আছে তিনি নাকি এক রাতের মধ্যে  একটি পুকুর কেটে সেসময়ের বিটঘরের জমিদারকে  অবাক করে দিয়েছিলেন, এক সময় নাকি ওনার ভাই সিলেট এলাকায়  বাঘের আক্রমণের কবলে পড়েন আর লবশাহ তা ধ্যানের মধ্যমে দেখে তার ভাইকে বাঘ থেকে উদ্ধার করেছিলেন ।
এছাড়াও একদিন  বাড়ি থেকে লবশাহ  তার ভাই যিনি বাড়ি থেক বেশ দূরে ছিলেন, তার কাছে অল্প সময়ের মধ্যেই গরম  পিঠা দিয়ে আসার ঘটনাটিও এলাকায় অনেকের মুখে শুনা যায়।   আর এইসব বিষয়গুলো প্রকাশ পায় ওনার ভাইয়ের মাধ্যমে।
লবশার মাজারের পশ্চিম পাশের পুকুরটিতে তিনি প্রায়ই নাকি পয়সা দিয়ে ঢিল ছুড়তেন । কেন  ছুড়তেন এর রহস্য এখনো উন্মোচন হয়নি। এলাকায় লবশাহকে নিয়ে কিছু সমালোচনাও শুনা যায়। অনেকে  বলছেন তিনি নাকি মানসিকভাবে সুস্থ ছিলেন না। যে কারনে অস্বাভাবিক কিছু ঘটনায় তাকে মানসিক ভারসম্যহিন মনে হত।
বাশারুক গ্রামটি প্রাকৃতিক পরিবেশে গ্রামীন পটভূমিতে এখনো বিদ্যমান। যেখানে চোখে পরার মত আধুনিকতার ছোয়া এখনো লাগেনি। ওরস উপলক্ষ্যে  মাজারের আশেপাশে ফকিরদের আস্তানা গড়ে উঠা সহ বহিরাগত মানুষের আনাগোনায় যাতে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সে বিষয়ে  ওরস উৎযাপন কমিটির লোকজনকে এলাকাবাসীর স্বাভাবিক চলাচলের বিষয়টি বিবেচনায় রাখতে হবে। তবে আইন শৃংখলা বাহিনীর লোকজনকেও এখানে গুরুত্বপুর্ণ ভুমিকা রাখতে হবে।
কেননা লবশাহের মাজার ও ওরস বাশারুক গ্রামের ঐতিহ্য এবং ইতিহাসকে বহন করে আসছে যা বাশারুক গ্রামের  সামাজিক বন্ধনের বহিঃপ্রকাশ ।

লেখকঃ এনামুল হক এনাম, মাস্টার্সে অধ্যয়নরত ,লোক প্রশাসন বিভাগ, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়য়।
সভাপতি – ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্র কল্যাণ সমিতি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়।

Email: anamulhoque1015@gmail.com

Facebook Comments Box

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

নবীনগরে ভুয়া পুলিশ আটক

১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৬ | 26223 বার

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০