শিরোনাম

প্রচ্ছদ নবীনগরের খবর, শিরোনাম, স্লাইডার

মনোনয়ন দৌড়ে অাওয়ামীলীগের ফয়জুর রহমান বাদল এগিয়ে

এনামুল হক চৌধুরী | বৃহস্পতিবার, ০৫ জুলাই ২০১৮ | পড়া হয়েছে 4993 বার

মনোনয়ন দৌড়ে অাওয়ামীলীগের ফয়জুর রহমান বাদল এগিয়ে

ব্রাহ্মনবাড়ীয়া জেলার নবীনগর নির্বাচনী এলাকায় অাগামী একাদশ  সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন দলের প্রার্থীরা ব্যাপক গন সংযোগ করে যাচ্ছেন।  সাড়ে তিন  লাখ ভোটার অধ্যুষিত এ অাসনটি ২১ টি ইউনিয়ন ও ১ টি পৌরসভা নিয়ে গঠিত।
উক্ত অাসনে ৭০.৭৩.১৯৯৬.২০১৪ সালে অাওয়ামীলীগ,৭৯ ও ১৯৯৬ সালের ১৫ই ফেব্রুয়ারীর নির্বাচনে বিএনপি পাশ করেন, ৮৬.৮৮.৯১ জাতীয় পাটির এরশাদের প্রার্থী পাশ করে ।২০০১ সালে চারদলীয় এক্যজোট এর জাতীয় পাটি ( নাফি) প্রার্থী বিজয় লাভ করে এ আসন থেকে।
২০০৮ মহাজোট মনোনিত জাসদের এডভোকেট শাহ জিকরুল অাহমেদ খোকন  নোকা প্রতীক নিয়ে বিজয় লাভ করে।উক্ত অাসনে মহাজোট ভুক্ত অন্যান্য সংগঠনের তেমন কোন ভোট ব্যাংক নাই। তারা অাওয়ামীলীগের ভোট ব্যাংকের উপর নির্ভরশীল।
উক্ত অাসনটিতে অাওয়ামীলীগের বিশাল ভোট ব্যাংক থাকলে ও অতীতে শক্তিশালী প্রার্থীর অভাবে অাসনটি হাতছাড়া হত।
বতমানে অাওয়ামীলীগের সাংসদ বিশিষ্ট শিল্পপতি, উপজেলা অাওয়ামীলীগের সভাপতি ও যোগাযোগ মন্ত্রনালয়ের সংসদীয় কমিটির সদস্য ফয়জুর রহমান বাদল ২০১৪ সালের নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে নবীনগরে ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন।স্বাধীনতার পর নবীনগরে এত উন্নয়ন কখন ও হয় নি।নবীনগর বাসী দীর্ঘ দিনের স্বপ্ন জেলা সদরের সাথে যোগাযোগ সড়ক, বাস্তবায়নের পথে। অবহেলিত পুর্বাঞ্চলের ব্যাপক উন্নয়ন করেন। নবীনগর – শিবপুর – রাধিকা-ব্রাহ্মনবাড়ীয়া সড়ক, এছাড়াও নবীনগর -কৃষ্ণনগর -ব্রাহ্মনবাড়ীয়া সড়ক, ও নবীনগর- শিবপুর -কুড়িগড় – ব্রাহ্মনবাড়ীয়া সড়কের কাজ চলমান রয়েছে। স্বাধীনতা পরবর্তী সময় থেকে উপজেলার সাথে জেলা সদরে সড়ক পথে যাতায়াতে এখানকার মানুষজনের নৌ-পথ ছিলো একমাত্র মাধ্যম। দীর্ঘ ৪৬ বছর পরে জেলা শহরের সড়কপথে দ্রুততার সহিত আসা যাওয়ায় তিনটি সড়কের নির্মাণ এমপি বাদলকে উন্নয়নের মহা কারিগর উপাদি দিয়েছে ।

নবীনগর -কোম্পানীগন্জ সড়ক  পু্নঃসংস্কার করা সহ পুর্বের ১২ ফিট থেকে ১৮ ফিটে প্রসস্থকরন করা হয়েছে। যাকিনা  এ অঞ্চলের মানুষজনের স্বপ্ন ছিলো। এছাড়াও কাইতলা ইউনিয়নের বিদ্যুত বঞ্চিত  দুইটি গ্রামে শতভাগ বিদ্যুতায়নের আওতায় আনা হয়েছে ফয়জুর রহমান বাদল এমপির প্রচেষ্টায়।
এছাড়াও মেঘনা ভাঙ্গন রোধে নাছিরনগর-মানিকনগর এলাকায় বাঁধ নির্মাণ প্রশংসা পেয়েছে সুশীল মহলে। উক্ত বাঁধ নির্মাণের ফলে এর সুফল পাবে মেঘনা পাড়ের বাসিন্দারা।


নবীনগরে প্রায়  ১২০০ কোটি টাকার কাজ করেন তিনি। নবীনগরের রাস্তাঘাটের ব্যাপক উন্নয়ন চোখে পড়ার মত।
বিশিষ্ট শিল্পপতি ও নবীনগর উপজেলা অাওয়ামীলীগের সভাপতি সাংসদ ফয়জুর রহমান বাদলের  মাদক ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সুদৃঢ় অবস্হান ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেন। দলমত নির্বিশেষে নবীনগরের মানুষজন তাকে পছন্দ করেন ।

আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার অাসামী  জাতির জনকের  ঘনিষ্ঠ সহচর সার্জেন্ট মুজিবুর রহমানের সন্তান হিসাবে ও কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে গ্রহনযোগ্যতা রয়েছে ব্যাপক। ব্যাক্তিগত তহবিল থেকে প্রতি মাসে ১০/১২ লাখ টাকা নবীনগরের গরীব দুঃখী মানুষকে দান করে থাকেন এমন তথ্য দিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের কয়েকজন নেতৃবৃন্দ।

উদার মনের অধিকারী এমপি বাদলকে আবারো অাওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন দিলে অাসনটি ধরে রাখা সম্ভব হবে বলে নবীনগরের  অাওয়ামীলীগ তথা সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও  সাধারন মানুষের ধারনা। উক্ত অাসনে  অাওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী অনেক ফয়জুর রহমান বাদল ছাড়াও অাওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হলেন-
বিশিষ্ট শিল্পপতি ও কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা এবাদুল করিম বুলবুল,নবীনগর উপজেলা অাওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি ও সাবেক ছাএনেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা  নিয়াজ মোহাম্মদ খান,ঢাকা মহানগর দক্ষিন অাওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট কাজী মোর্শেদ কামাল,কেন্দ্রীয় উপকমিটির সদস্য ও ব্রাহ্মনবাড়ীয়া জেলা অাওয়ামীলীগের শিক্ষা সম্পাদক ব্যারিষ্টার জাকির অাহমেদ,  ঢাকা দক্ষিন সিটি কর্পোরেশন এর কাউন্সিলর মমিনুল হক সাইদ, কেন্দ্রীয় অাওয়ামীলীগের উপকমিটির সাবেক সহ সম্পাদক ,সাবেক সাংসদ কাজী অাকবর উদ্দিক সিদ্দিকের ছেলে কাজী জহির উদ্দিক সিদ্দিক টিটু,নবীনগর মহিলা অাওয়ামীলীগের অাহবায়ক ও জেলা পরিষদের সদস্য অধ্যাপিকা নুরুন্নাহার বেগম, কেন্দ্রীয় উপকমিটির সদস্য ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি অারিফুল ইসলাম টিপু, কেন্দ্রীয় যুবলীগের স-সম্পাদক অালামিনুল হক অালামিন, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতিও কৃষকলীগ নেতা  এডভোকেট এনামুল হক চৌধুরী, ব্যারিষ্টার নজরুল ইসলাম নবী।
বিএনপি থেকে মনোয়ন প্রত্যাশীরা হলেন – প্রয়াত সাংসদ কাজী অানোয়ার হোসেন এর ছেলে নাজমুল হক তাপস, বিএন পির কেন্দ্রীয় নেতা তকদীর হোসেন জসীম, অায়কর উপদেষ্টা গোলাম সারোয়ার,বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ইন্জিনিয়ার শফিকুল ইসলাম, সাবেক সভাপতি এড. মান্নান, সাবেক  কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতা ও উপজেলা বিএনপির সিনিয়র সহ সভাপতি সাইদুল হক সাইদ,উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক এড অানিছুর রহমান মন্জু,কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতা রাজীব অাহসান চৌধুরী পাপ্পু, জিয়া পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতা অালী অাজ্জম জালাল প্রমুখ।
জাসদ থেকে সাবেক সাংসদ ও কেন্দ্রীয় জাসদের সহ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা  এডভোকেট  শাহ জিকরুল অাহমেদ খোকন। তিনি মহাজোট থেকে মনোনয়ন পাওয়ার জন্য জোর তৎপরতা চালাচ্ছেন।
জাতীয় পাটি এরশাদ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী  এরশাদের উপদেষ্টা ও ব্রাহ্মনবাড়ীয়া জেলা জাতীয় পাটির সদস্য সচিব কাজী মামুন।
ইসলামী ঐক্যজোট থেকে মাওলানা মেহেদী হাসান মনোনয়ন প্রত্যাশী। ইসলামী অান্দোলন বাংলাদেশ থেকে ইসলামী যুব অান্দোলনের কেন্দ্রীয় পরামর্শ পরিষদ সদস্য অালহাজ্ব মাওলানা উসমান গনী রাসেল।

তবে প্রার্থীদের  মধ্যে ২/১ একজনের মুল টার্গেট হল উপজেলা নির্বাচন করা, নিজেকে অালোচনায় অানতে এবং প্রচারের জন্য সংসদ সদস্য প্রার্থী হয়েছেন বলে  জানা যায়।
তাছাড়া  জোটগত নির্বাচন হলে হিসাব নিকাশ পাল্টে যেতে পারে। এদিকে অাওয়ামীলীগ ও তার সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দের বক্তব্য হল নবীনগরে জোটগত অন্যান্য সংগঠনের কোন ভোট  ব্যাংক নাাই। তারা অাওয়ামীলীগ থেকে প্রার্থী দেওয়ার জোর দাবী জানান। এবং বেশীর ভাগ নেতা চাচ্ছেন  অাবারো ফয়জুর রহমান বাদলকে মনোয়ন দেয়া হোক। তাদের দাবী ফয়জুর রহমান বাদল নবীনগরে যে উন্নয়ন করেছেন, এর ধারাবাহিকতায় অসমাপ্ত কাজগুলোও সমাপ্ত করা যাবে।
তবে নবীনগরে মুল লড়াই হবে অাওয়ামীলীগ ও বিএনপির মধ্যে। সেকারনে  অাওয়ামীলীগ বর্তমান সাংসদ ও উপজেলা অাওয়ামীলীগের সভাপতি ফয়জুর রহমান বাদলের নেতৃত্বে অনেকটা উজ্জীবিত।

Comments

comments

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

নবীনগরে ভুয়া পুলিশ আটক

১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৬ | 25653 বার

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০