শিরোনাম

প্রচ্ছদ নবীনগরের খবর, শিরোনাম, স্লাইডার

মামলা তুলে নিতে রফাদফার প্রস্তাবে শাশুড়ীকে ফোন

ডেস্ক রিপোর্ট | বৃহস্পতিবার, ২৩ জুলাই ২০২০ | পড়া হয়েছে 561 বার

মামলা তুলে নিতে রফাদফার প্রস্তাবে শাশুড়ীকে ফোন

নবীনগরে খুনের ঘটনার মাস পেরিয়ে গেলেও আসামী গ্রেফতার না হওয়ায় নিহতের পরিবারে হতাশা বিরাজ করছে। অপরদিকে এই ঘটনার রফাদফায় নিহতের শাশুড়ীর মুঠোফোনে জনৈক ব্যক্তি মোটা অংকের টাকার লোভ দেখিয়ে মামলা তুলে নেয়ার প্রস্তাব দিয়েছে। মুঠোফোনে কথা বলার অডিও রেকর্ড ফাস হওয়ায় তা এখন সর্বত্র আলোচনার ঝড় তুলেছে।

জানা গেছে, উপজেলার লাউর ফতেহপুর ইউনিয়নের লাউর গ্রামের বহুল আলোচিত ও চাঞ্চল্যকর জয়নাল হত্যাকাণ্ড মোটা অংকের টাকায় ‘আপস রফা’ করতে নিহতের শাশুড়িকে ফোন দেওয়ার বিষয়টি নিয়ে এখন সর্বত্র তোলপাড় চলছে।


আসামিদের পক্ষে জনৈক মান্নান নামের এক ব্যক্তি মঙ্গলবার রাতে নিহত জয়নালের শাশুড়ি তাসলিমা বেগমকে ওই ফোন দেন। দীর্ঘ ৯:৩৫ মিনিটের ওই ফোনালাপে এক পর্যায়ে এলাকার দুই কৃতি সন্তান জেলা আওয়ামী লীগ নেতা ব্যারিস্টার জাকির আহাম্মদ ও বর্তমান উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জাকির হোসেন সাদেকের কাছে হত্যাকাণ্ডটি ‘আপস রফা’ করার জন্য লোকজন যাবে বলেও উল্লেখ করা হয়। ফোনালাপের ওই অডিওটি ইতিমধ্যে স্থানীয় অনেকের কাছে হস্তগত হওয়ায়, বিষয়টি এখন ‘টক অব দ্য নবীনগর’ এ পরিণত হয়েছে।
জানা গেছে, ওই ফোনালাপে আসামিদের পক্ষে ফোন দেওয়া মান্নান নিহত জয়নালের শাশুড়ি তাসলিমাকে ‘মামী’ সম্বোধন করে বলেন, ‘কেইছ মামলা চালাইয়া খুব একটা সুবিধা হইব না মামী। সেজন্য মামলাটি আপস মিমাংসা করলেই বাদীর লাভ হইব। আর যা হইব, ব্যারিস্টার জাকিরের মাধ্যমেই কথাডা হইব। এর মধ্যে একজন নেতাও ব্যারিস্টারের লগে যোগাযোগ করছেন। ব্যারিস্টারও আপস মিমাংসা চাচ্ছেন। কিন্তু কত টেহার মাধ্যমে এইডা ‘আপস’ হইব, হেইডা অহনও ঠিক হয় নাই!

দীর্ঘ প্রায় ১০ মিনিটের ওই আলোচিত ফোনালাপে এক মহিলা নিহতের শাশুড়ি তাসলিমাকে বলেন, ‘বাদী (নিহতের স্ত্রী) রাজী থাকলে সর্দাররা মিমাংসার দায়িত্ব নিয়ে মামলাটি ‘আপস রফা’ করে দেবেন। বাদী রাজী থাকলে সর্দাররা ব্যারিস্টার জাকির ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের কাছে লোকজন নিয়া যাইব।’

প্রতি উত্তরে নিহতের শাশুড়ি ও বাদীর মা তাসলিমা বেগম ফোনালাপের শেষের দিকে কিছুটা ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, ‘মামলাটি আপস করতে আসামিরা আমার মাইয়ারে কয় লাখ আর কয় কোটি টাকা দিব? হেইডা আমারে আগে জানান।
এদিকে এ বিষয়ে লাউর ফতেপুরের স্থানীয় বাসিন্দা, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জাকির হোসেন সাদেক বলেন, ‘অডিও’র কথা শুনেছি। তবে আমি নিজ কানে এখনো শুনিনি। এসব নিয়ে আমার কোনো আগ্রহ নেই। তাই এ নিয়ে আমার কোনো মন্তব্যও নেই।’

তবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার জাকির আহাম্মদ বলেন, ‘ফোনালাপে আমাকে জড়িয়ে যারা কথা বলেছেন, তাদের কাউকেই আমি চিনি না। আর কথিত আপস রফার কথাও আমি কারো সঙ্গে কিংবা কেউ আমার সঙ্গে করেনি। এ ধরনের অবাস্তব ও কাল্পনিক কথাবার্তা সম্পূর্ণ ষড়যন্ত্রমূলক। আমাকে রাজনৈতিকভাবে হেয় করতেই এসব অপপ্রচার চলছে। অডিও’র তিনজনকে ধরে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করলেই, আসল রহস্য বের হয়ে যাবে।’

নবীনগর থানার ওসি প্রভাষ চন্দ্র ধর বুধবার রাতে বলেন, ‘অডিও’র কথা আমিও শুনেছি। তবে আইন অনুযায়ী হত্যা মামলা আপসের কোনো সুযোগ নেই। আমরা আসামিদের ধরে যথাসময়ে আদালতে চার্জশিট দিয়ে দেব। আসামিদের ধরতে পুলিশের একাধিক টিম কাজ করছে।’

উল্লেখ্য, গত ২২ জুন প্রকাশ্যে উপজেলার লাউর গ্রামে জয়নাল (৩৫) কে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে সন্ত্রাসীরা। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৮ জুন জয়নাল মারা যায়।

এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী রুখসানা বাদী হয়ে প্রথমে ছয়জন পরে ২০ জনকে আসামি করে মামলা করলেও, পুলিশ এ পর্যন্ত কাউকেই গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

অভিযোগ আছে, খুনিরা প্রভাবশালীদের আশ্রয় প্রশ্রয়ে থাকায় পুলিশ আসামিদের ধরতে পারছে না।

Comments

comments

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

নবীনগরে ভুয়া পুলিশ আটক

১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৬ | 25538 বার

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০