শিরোনাম

প্রচ্ছদ নবীনগরের খবর, শিরোনাম, স্লাইডার

“শেষ রনাঙ্গনের বীর” শহীদ আব্দুস সালাম সরকার

জোবায়েদ আহাম্মদ মোমেন | রবিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০২০ | পড়া হয়েছে 180 বার

“শেষ রনাঙ্গনের বীর” শহীদ আব্দুস সালাম সরকার

এক নিকট আত্বীয়ের দু:স্বপ্নের কথা শুনে মা তার আদরের ছেলেকে লোক মারফত খবর পাঠালেন বাড়িতে চলে আসতে। কিন্তু তিনি গেলেন না, তিনি তখন যুদ্ধরত পাক বাহিনীর সাথে মাঝিকাড়া গ্রামের খালপাড় করিম চেয়ারম্যান এর বাড়িতে। মাঝিকাড়া থেকে কনিকাড়া বাড়ির দুরত্ব কতটুকুইবা। কিন্তু তিনি গেলেন না, মাকে খবর পাঠালেন, ‘নবীনগরকে হানাদার মুক্ত করেই তবেই বাড়ী ফিরব’। কিন্তু আফসোস নবীনগর শক্রুমুক্ত হল ঠিকই কিন্ত তার আর বাড়ি ফেরা হল না। অস্র হাতে পজিশনে থাকা অবস্থায় হাই স্কুলের ছাদ থেকে হানাদারের একটি বু্লেট জানালা ভেদ করে তার তলপেটে বিদ্ধ হয়ে পিছন দিক দিয়ে ভুঁড়ি ফুড়ে বেরিয়ে গেল। মৃত্যুর কোলে ঢু্লে পড়ে শাহাদতের আমিয় সুদা পান করলেন তিনি।

নবীনগর মুক্ত হওয়ার মাত্র একদিন আগে, ডিসেম্বরের ১৩ তারিখ। তিনি শহীদ আব্দুস সালাম সরকার। বাড়ি কনিকাড়া, আমি তাকে বলি “শেষ রনাঙ্গনের বীর”। পিতা আব্দুল খালেক সরকার, মাতা মোছাম্মত আমেনা খাতুন। ৩ ভাই ও ২ বোনের সবার বড় আব্দুস সালাম ১৯৭১ সালে চাকরিরত ছিলেন পাকিস্তান সেনাবাহিনীর গাজীপুর মিলিটারি ক্যাম্পে। হায়েনার আঘাতে যখন বিধ্বংস মা-মাটি-দেশ, তখন এক মুহূর্ত দেরী না করে যোগ দেন স্বাধীনতার সংগ্রামে। যুদ্ধ করেন চন্দ্রপুর, দুরুইন, বল্লভপুর, চারগাছ, মিরপুর, বিটঘর’সহ ভয়াবহ সব যুদ্ধে। চালাতেন এস.এল.আর, তবে দক্ষতা ছিল এল.এম.জি চালনায়। পরিবারের সবচেয়ে মিতভাষী ছেলেটি স্বপ্ন দেখতেন যুদ্ধ জয়ের পর একদিন বিজয়ের বেশে ফিরবেন গ্রামে, মায়ের কোলে। তাইতো পুরো মুক্তিযুদ্ধের সময়টায় একবারের জন্যে যাওয়া হয়নি বাড়িতে। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক ভাবে নবীনগর মুক্ত হওয়ার ২৪ ঘন্ট আগে শহীদ হন সালাম সরকার। সহযোদ্ধারা তার শবদেহ কে মাঝিকাড়া থেকে নারায়নপুর নিয়ে যান, এবং প্রতিজ্ঞা করেন যে, “নবীনগরকে শক্রুমুক্ত করার আগ পর্যন্ত সালাম সরকারের লাশ সমাধিস্থ করবেন না।“ সহযোদ্ধারা সেদিন কথা রেখেছিলেন, তাদের চরম আক্রমনের মুখে ১৪ই ডিসেম্বর নবীনগরের পাকিস্তানি সৈন্যরা আত্বসমর্পন করে। শক্রুমুক্ত হয় নবীনগরবাসী।
মুক্ত নবীনগরের পাইলট হাই স্কুলের প্রবেশ মুখের বাম পাশে তাকে কবর দেওয়া হয়। এখানেই চির শয্যায় শায়িত আছেন আমাদের নবীনগরের সূর্য সন্তান শহীদ আব্দুস সালাম সরকার। আজকে ১৩ই ডিসেম্বর তাঁর মৃত্যু বার্ষিকী, তার প্রতি রইল গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি।
(প্রসংগতঃ নবীনগর বাজারের প্রধান সড়কটি তাঁর নামে “সালাম রোড” নামকরণ করা হয়, যা আজও তাঁর স্মৃতি বহন করছে।)


গ্রন্থনাঃ জোবায়েদ আহাম্মদ মোমেন।
তথ্য কৃতজ্ঞতাঃ
বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ারুল হক সরকার- শহীদ ভ্রাতা।
বীর মুক্তিযোদ্ধা শামসুল আলম শাহন ।
কনিকাড়া কামরুন নাহার লিপি- শহীদের ভাতিজি।

Comments

comments

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

নবীনগরে ভুয়া পুলিশ আটক

১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৬ | 25751 বার

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১