শিরোনাম

প্রচ্ছদ নবীনগরের খবর, শিরোনাম, স্লাইডার

সাজানো অভিযোগে ফাঁসলেন কবির চেয়ারম্যান

ডেস্ক রিপোর্ট | শুক্রবার, ২৯ মে ২০২০ | পড়া হয়েছে 462 বার

সাজানো অভিযোগে ফাঁসলেন কবির চেয়ারম্যান

মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে নগদ অর্থ সহায়তা কর্মসূচির সুবিধাভোগীদের তালিকা প্রণয়নে অনিয়মের অভিযোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার বীরগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান কবির আহমেদকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।
এ ঘটনায় তাকে কারণ দর্শনোর নোটিশ দিয়ে ২৮ মে এলজিআরডি মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

অথচ সুবিধাভোগীদের ওই তালিকায় স্বাক্ষর করেননি কবির আহমেদ। স্বাক্ষর করেছেন ওই ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান দুলাল মিয়া। এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে এ তথ্য জানান তার ছোট ভাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এইচ.এম আল-আমিন।


স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন, পার্শ্ববর্তী কৃষ্ণনগর ইউপির একটি মারামারির ঘটনায় ষড়যন্ত্রমূলক কবির আহমেদ চেয়ারম্যানকে আসামি করা হয়েছে। হাইকোর্ট বন্ধ থাকায় জামিন নিতে না পেরে নিজের নিরাপত্তার জন্য তিনি এলাকায় অনুপস্থিত। এ কারণে তিনি তালিকা তৈরি করতে পারেননি। তৈরি হওয়া তালিকায় চেয়ারম্যানের কোনো স্বাক্ষরও নেই। তার অনুপস্থিতিতে প্যানেল চেয়ারম্যান তালিকায় স্বাক্ষর করেছেন।

তিনি আরো লেখেন, তালিকায় আমার ভাই, তার স্ত্রী-সন্তান, ভাই-বোন কারো নাম নেই। এরপরও কিভাবে আমার ভাইয়ের বিরুদ্ধে তালিকায় দুর্নীতি কিংবা অনিয়মের অভিযোগ প্রমাণিত হয়, সেটা আইনি প্রক্রিয়ায় আমরা অবশ্যই মোকাবিলা করবো।

আল আমিন লেখেন, আমার ভাই হাজী কবির আহমেদ বীরগাঁও ইউপির দুইবারের চেয়ারম্যান। তিনি এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। গত ১০ বছরে আমার ভাইয়ের বিরুদ্ধে ন্যুনতম অনিয়ম কিংবা আর্থিক লেনদেনের অভিযোগ ছিল না। একজন সফল চেয়ারম্যান হিসেবে বিভিন্ন পদকও পেয়েছেন। রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রে অর্থনৈতিকভাবে বিভিন্ন সময় আমাদের পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পরও বীরগাঁও ইউপির মানুষের শান্তির লক্ষ্যে শত বাধা-বিপত্তি, হামলা-মামলায় ধৈর্য ধারণ করে এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে আমার ভাই নিজেকে উৎসর্গ করেছেন।

তিনি আরো লেখেন, সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ২৫০০ টাকা বিতরণের তালিকায় বীরগাঁও ইউপির মেম্বার তাহের ও তার স্ত্রী-মেয়ের নাম এবং ইউপি আওয়ামী লীগের স্থগিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেনের আপন বড় ভাই আলমগীর মেম্বার ও তার স্ত্রীর নাম দিয়েছেন। আর সাজানো অভিযোগের ভিত্তিতে আমার ভাইকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে ও কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে। এই পর্ব শেষ হলে, হাইকোর্টের বিষয় রয়েছে। অল্প করে শুধু বলবো, আইনের চোখে আমার ভাই অপরাধী না হয়েও যদি চেয়ারম্যান পদ না থাকে তাহলেও আমরা বিচলিত নয়। জনগণ চেয়েছিলো, তাই দুবার চেয়ারম্যান হয়েছেন। জনগণ যদি না চান তাহলে চেয়ারম্যান হবেন না। তবে যারা ভবিষ্যতে চেয়ারম্যান হবার স্বপ্ন দেখছেন এবং অপপ্রচার করছেন তারা নিশ্চিত জেনে রাখুন। আমরা রাজনীতি করি, জবাব রাজনৈতিকভাবেই দিবো। চার বছর আগেও যারা চেয়ারম্যান নির্বাচন নিয়ে মামলা করে চেয়ারম্যান হয়ে গেছেন বলে অপপ্রচার করেছেন, মিষ্টি বিতরন করেছেন, মিথ্যে স্বপ্ন দেখেছেন, তাদের স্বপ্ন এবারও পূর্ণ হবে না ইনশাআল্লাহ।

Comments

comments

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

নবীনগরে ভুয়া পুলিশ আটক

১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৬ | 25316 বার

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১