শিরোনাম

প্রচ্ছদ নবীনগরের খবর, শিরোনাম, স্লাইডার

নবীনগরে চুরির অপবাদে বৃদ্ধ পিতার বসতঘরে হামলা ও লুটপাটের অভিযোগ

মিঠু সূত্রধর পলাশ | শনিবার, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | পড়া হয়েছে 634 বার

নবীনগরে চুরির অপবাদে বৃদ্ধ পিতার বসতঘরে হামলা ও লুটপাটের অভিযোগ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার কাইতলা (উওর) ইউনিয়নের ব্রাহ্মণহাতা গ্রামে ছেলের বিরুদ্ধে চুরির অপবাদ এনে বৃদ্ধ পিতার বসতঘরে হামলা ও লুটপাট চালিয়ে ভাংচুরের অভিযোগ উঠেছে সেখানকার প্রভাবশালী একটি মহলের বিরুদ্ধে। ভাংচুরের পর আরেকটি ঘড়ে তালা লাগিয়ে দেয়ায় বৃদ্ধ তার পরিবারের লোকজনদের নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় অন্যত্র পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।

প্রভাবশালী ওই মহলের এমন অমানবিক ঘটনায় গ্রামে নিন্দার ঝড় উঠেছে।


এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, ওই গ্রামের বৃদ্ধ জীবন মিয়ার ছেলে হান্নান মিয়া (৩০) কে গত সপ্তাহে (বৃহস্পতিবার রাতে) ব্রাহ্মণহাতা গ্রামের পাশের নোয়াগাঁও এলাকা থেকে চোর অপবাদ দিয়ে আটক করে সেখানকার প্রভাবশালী মো. রিপন মিয়া ও তার অনুসারী কয়েকজন। আটকের পরেরদিন রিপন মিয়া এলাকার কয়েকজনকে নিয়ে তার বাড়িতে সালিশি সভা ডেকে আটক হান্নান মিয়াকে দুই বছর বিনা পয়সায় তার গরুর খামারে কাজ করার নির্দেশ দেন। নিরুপায় হান্নান মিয়া খামারে কাজ করার একপর্যায়ে ওইদিন রাতেই সেখান থেকে পালিয়ে যায়।
এতে ক্ষিপ্ত হয়ে প্রভাবশালী রিপন মিয়া তার অনুসারীদের নিয়ে গত রোববার হান্নানের পিতা জীবন মিয়ার দুটি বসত ঘরের একটিতে ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়ে অপরটিতে তালা লাগিয়ে দেন।
এ ঘটনার পর আনুমানিক ষাট বছরের বৃদ্ধ জীবন মিয়া তার স্ত্রী, তিন ছেলে এক মেয়ে ও ছেলের বউকে নিয়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. অলি মিয়া বলেন, চোর সন্দেহে হান্নানকে আটকের পর রিপন সাহেব বাড়িতে শালিসি সভা ডেকে বিনা বেতনে দু’বছর কাজ করার সিদ্ধান্ত নেন। আমি তাকে পুলিশে দেয়ার কথা বলেছিলাম। পরে শুনেছি হান্নান পালিয়ে গেলে রিপন সাবের লোকজন তার পিতার বসতঘর ভাংচুর করে ঘরে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে।
এ বিষয়ে অসহায় বৃদ্ধ জীবন মিয়ার সাথে কথা বললে কান্না জড়িত কণ্ঠে তিনি জানান, আমার ছেলে চোর হলে তাকে পুলিশে দিতে পারতো। আইনের গতিতে তার বিচার হতো। তানা করে তারা আমার বাড়িতে হামলা চালিয়ে ঘরের জিনিস পত্র নিয়া গেছে। ঘরে তালা লাগিয়ে আমাদের বের করে দিছে। তিনি এ বিষয়ে এলাকার সাহেব সর্দার ও পুলিশকেও এ ঘটনা জানিয়ে কোন প্রতিকার পাচ্ছেন না বলে এ প্রতিবেদককে জানান। তিনি এখন পরিবারের সকল সদস্যদের নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (নবীনগর সার্কেল) মেহেদী হাসান জানালেন, এ বিষয়ে কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি। ঘটনা শুনার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। আমি নিজেও সেখানে যাব। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিষয়ে রিপন মিয়ার সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি জানান, চোর হান্নান সম্পর্কে আমার ভাতিজা হয়। তাকে ভালো হওয়ার জন্য সুযোগ দিয়েছিলাম আমার খামারে চাকরি দিয়ে। তাদের ঘর ভাঙ্গার বিষয়ে আমি কিছু জানি না। গ্রামের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, আমি একসময় গ্রামকে অনেক ঘৃণা করতাম। গ্রামে গেলে আমার প্রতিদিন এক লাখ টাকা খরচ হয়। আমি স্পাইডার গ্রুপের ম্যানিজিং ডিরেক্টর। এলাকার অনেক উন্নয়নমূলক কাজে আমি অবদান রাখি।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

নবীনগরে ভুয়া পুলিশ আটক

১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৬ | 26083 বার

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০